ইন্টারনেট টিপস

পরিচিত আইডি থেকে টাকা চেয়ে ম্যাসেজ? টাকা পাঠানোর আগে যা করণীয়।

আগের দিনের মানুষ জন দূরের কারো সাথে যোগাযোগ করতে চিঠি আদান-প্রদান করত।

প্রেরকের সেই চিঠি প্রাপকের নিকট গিয়ে পৌছাতে কয়েক সপ্তাহ এমনকি মাস পর্যন্ত সময় লেগেযেত।

কালের পরিক্রমায় যোগাযোগের জন্য চিঠির ব্যবহার বিলুপ্তির পথে। এখন চাইলেই হাতে থাকে ছোট একটি ফোনের সাহায্যেই সেকেন্ডের মধ্যে দেশ-বিদেশে যোগাযোগ করা সম্ভব।

যার সবই প্রযুক্তির অগ্রগতির ফলেই সম্ভব হয়েছে। এখন একে অপরের সাথে যোগাযোগ করতে বিভিন্ন মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনগুলোই বেশি ব্যবহার হয়ে থাকে।

যার মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপ, ইমো, মেসেঞ্জার, টেলিগ্রাম ইত্যাদি অ্যাপ্লিকেশন বেশ জনপ্রিয়।

এসব অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে পরিবার, আত্নীয়সজন, বন্ধু-বান্ধব সহ সবার সাথে অতি সল্প খরচে, সহজেই যোগাযোগ করা সম্ভব।

তবে প্রযুক্তি ব্যবহারে একটু অসতর্ক হলেই অনেক বড় সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

প্রযুক্তির ব্যবহার আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। তাই প্রতারক চক্রও তাদের প্রতারণার সহজ মাধ্যম হিসেবে প্রযুক্তিকেই বেছে নিয়েছে।

ধরুন, এসব মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন থেকে আপনার কাছের কারো আইডি থেকে আপনার কাছে মেসেজ আসলো যে, তার জুরুরি ভাবে কিছু টাকার প্রয়োজন, পরে সময় মতো টাকাগুলো সে পরিশোধ করে দিবে।

টাকাগুলো যেহেতু জরুরি তাই আপনি এদিক সেদিন না ভেবে দিয়ে দিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে জানতে পারলেন আপনি যাকে মনে করে টাকাগুলো দিলেন সে এ ব্যাপারে কিছুই জানে না!

আসলে যে আইডি থেকে আপনাকে মেসেজ করেছে তা অন্য কেউ হ্যাক করে নিয়েছে কিংবা অন্য কোনো ভাবে আইডির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে।

এবং সেই প্রতারক যে এই কাজটি করেছে সে আপনার কাছে টাকা চেয়েছিল আর আপনি তা দিয়ে দিয়েছেন। অথবা এমনও হতে পারে কারো ফোন হারিয়ে গেছে কিংবা চুরি হয়ে গেছে।

আর সেই হারনো বা চুরি হওয়া ফোন থেকেই কোনো প্রতারক আপনার কাছে টাকার জন্য মেসেজ করেছে।

যেহেতু আপনাদের দুজনের মাঝের কথোপকথন (Conversation) প্রতারক আগে থেকেই পড়ে নিবে তাই মেসেজের ধরন দেখে বুঝতেও পারবেন না যে, মেসেজগুলো অন্য কেউ করছে।

কারণ যাই হোক না কেন, কথা হচ্ছে আপনি এখন আপনার টাকাগুলো কার কাছে ফেরত চাবেন? যার আইডি থেকে মেসেজ করা হয়েছিল তার কাছে? সে তো এ ব্যাপারে কিছুই জানে না!

না কি সেই প্রতারকের কাছে? কিন্তু প্রতারক তো থাকবে ধরা ছোয়ার বাইরে। তাহলে? টাকা উধ্যারের জন্য কি আপনি থানায় চলে যাবেন?

এসবের কিছুই করার প্রয়োজন হবে না যদি আপনি কাউকে টাকা দেওয়ার পূর্বে সতর্কতা অবলম্বন করেন।

মেসেজ করে কেউ যখন আপনার কাছে টাকা চাবে আপনি কলে কথা বলে নিশ্চিত হয়ে নিবেন যার আইডি থেকে মেসেজটি এসেছে সেই মেসেজটি পাঠিয়েছে কিনা।

টাকার পরিমাণ বেশি হলে ভিডিও কলে কথা বলতে পারলে ভালো হয়। আর কোনো কারণে ভিডিও কিংবা অডিও কলে কথা বলতে সম্ভব না হলে অন্তত ভয়েস মেসেজের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে নিবেন।

যদিও কেউ কেউ অন্যের কণ্ঠ নকল করতে বেশ পারদর্শি! তবে আপনি যদি শুধু মেসেজের উপর ভিত্তি করে কোনো প্রকার লেনদেন করেন তাহলে পরবর্তীতে বিপদে পরতে পারেন।

আর এখন তো অনেককেই বলতে শুনা যায়, “আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে, আমার ইমো আইডি হ্যাক হয়েছে।

তাই অনলাইনে এসব মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে টাকা লেনদেন করার সময় সকলকে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

অন্যকে টাকা দেওয়ার পূর্বে এমনকি আপনিও যদি কারো কাছে টাকা চান তাহলে মেসেজ দেওয়ার পাশাপাশি অন্তত অডিও কলে কথা বলে নিবেন।

Mohammad Robin

আমি মুহাম্মদ রবিন, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!