ফেসবুক টিপস

জেনে নিন ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে।

ফেসবুক, নতুন প্রোফাইলকে Public হিসেবে সেট করে, যার মানে যেকোনো ব্যবহারকারী চাইলেই আপনার প্রফাইলে ঢুকতে পারবে এবং আপনার সকল পোস্ট দেখতে পারবে।

এমনকি রিয়াক্ট, কমেন্ট, শেয়ার করতে পারবে, সে যদি আপনার Friend নাও হয়।

কিন্তু আপনি যদি এটির উপর আরও নিয়ন্ত্রণ করতে চান বা অপরিচিত ব্যবহারকারীদের আপনার অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করা, আপনার পোস্ট দেখা এবং তাতে রিয়াক্ট, কমেন্ট, শেয়ার করা বন্ধ করতে চান, তাহলে আপনি আপনার ফেসবুক প্রফাইল লক করতে পারেন।

এটি আপনার সীমানার মধ্যে গোপনীয়তা সুরক্ষিত করতে সহায়তা করে। একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লক রাখার পরে, যারা আপনার Friend নন তারা আপনার ফেসবুক পোস্টগুলি দেখতে পারবে না।

যার ফলে রিয়াক্ট, কমেন্ট, শেয়ারও করতে পারবে না। শুধুমাত্র আপনার ফেসবুক ফ্রেন্ডস আপনার পোস্ট দেখতে এবং তাতে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবে৷

প্রযুক্তি প্রিয়‘র এই আর্টিকেলটিতে আলোচনা করবো, কিভাবে ফেসবুক আইডি লক করা যায়।

যদি আপনি আপনার আইডি সুরক্ষিত করতে চান এবং বিশ্বকে আপনার ব্যক্তিগত বিবরণ দেখাতে না চান তাহলে এটা করা জরুরি।

ফেসবুক প্রফাইল লক করার মানে কী?

একটি ফেসবুক প্রফাইল লক করা মানে অ্যাকাউন্ট টি Public থেকে Private করে ফেলা।

ফেসবুক প্রফাইল লক করা মূলত ইনস্টাগ্রাম, টিকটক অ্যাকাউন্ট প্রাইভেট করার মতোই।

এটি করার মাধ্যমে, আপনি ফেসবুকে থাকা অপরিচিত লোকদের থেকে আপনার অ্যাকাউন্টটি সুরক্ষা করতে পারেন।

যতক্ষণ না আপনি তাদের এটি দেখার অনুমতি দেবেন ততক্ষণ পর্যন্ত লোকেরা আপনার পোস্ট দেখতে পারবে না।

ফেসবুকে যারা আপনার বন্ধু নয় তারা শুধুমাত্র আপনার প্রফাইল বায়ো (Bio), ছোট করে আপনার বর্তমান প্রোফাইল ছবি, কাভার ছবি এবং কিছু তথ্য দেখতে পারবে৷

☞ আরো পড়ুন:  ফেসবুক পোস্টের রিয়াক্টের পরিমাণ হাইড করার নিয়ম জেনে নিন।

আপনি তাদের Friend Request গ্রহণ না করা পর্যন্ত ফেসবুক তাদের আপনার প্রাইভেট বিবরণ দেখতে বাধা দিবে।

কেন আপনার ফেসবুক প্রফাইল লক করা উচিত?

ফেসবুকে আপনার গোপনীয়তা বাড়ানোর জন্য, আপনাকে আপনার ফেসবুক প্রফাইল Lock করতে হবে।

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লক করার জন্য আরও কিছু অতিরিক্ত কারণ নিম্নরূপ দেওয়া হলো:

০১. গোপনীয়তা রক্ষা করতে।

আপনি যখন আপনার প্রোফাইল সেটিংস Public সেট করেন, তখন যারা ফেসবুক ব্যবহার করে তারা সবাই আপনার প্রোফাইলে যেতে পারে।

এর মাধ্যমে, লোকেরা আপনার ব্যক্তিগত জিনিস এবং অন্যান্য তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারে।

তারা আপনার অ্যাকাউন্টের তথ্য অনুযায়ী আপনাকে অনুসরণ করতে পারে এবং যা আপনার ক্ষতির কারণ হতে পারে।

তাই আপনার গোপনীয়তা বাড়ানোর জন্য এবং অনলাইন স্ক্যামারদের এড়াতে আপনাকে আপনার ফেসবুক প্রফাইল লক করতে হবে।

০২. অনুসারীদের নিয়ন্ত্রণ করা।

শুধু ফেসবুক নয়, প্রায় সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়াতে লোকেরা অন্যের প্রোফাইলে গিয়ে কাউকে অনুসরণ করতে ব্যবহার করে।

তারা আপনার সাথে ভালো বা খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে যোগাযোগ রাখতে চায়।

সুতরাং, আপনার গোপনীয়তা বজায় রাখতে এবং অবাঞ্ছিত অনুসারী নিয়ন্ত্রণ করতে, আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে Lock মোড Enable করা প্রয়োজন।

০৩. ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা।

ফেসবুকে কোনো প্রফাইল প্রবেশ করলে উক্ত প্রফাইলের প্রায় সকল তথ্যই Public অবস্থায় দেখায়। ফলে যে কেউই চাইলে তা দেখতে পারে।

তারা এই তথ্যের অপব্যবহার করতে পারে এবং আপনাকে ক্ষতির পথে নিয়ে যেতে পারে।

ফেসবুক আপনার পোস্ট করা সমস্ত ছবি, ভিডিও এবং অন্যান্য স্ট্যাটাস দেখায়।

এবং তারা অ্যাকাউন্ট থেকে আপনার ব্যক্তিগত বিবরণ পেতে সক্ষম হতে পারে। যেমন: আপনার ইমেল ঠিকানা, যোগাযোগ নম্বর এবং জন্ম তারিখ, আপনার বর্তমান অবস্থান ইত্যাদি।

তারা আপনার ব্যক্তিগত তথ্য অপব্যবহার করতে পারে। তাই, নিজেকে এবং আপনার অ্যাকাউন্টের বিশদ অপব্যবহার থেকে বিরত রাখতে, আপনাকে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লক করতে হবে।

☞ আরো পড়ুন:  ফেসবুক প্রফাইলের ইউজার নেইম পরিবর্তন করার নিয়ম।

এই কারণগুলি ছাড়াও, আপনি সংবেদনশীল ব্যক্তিগত কার্যকলাপ লুকাতে, আপনার কন্টেন্ট চুরি এবং পুনরায় পোস্ট করা থেকে আটকাতে এবং পরিচয় চুরির সম্ভাবনা কমাতে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লক করতে পারেন৷

ফেসবুক প্রফাইল লক করলে কী হবে?

০১. আপনার করা পোস্টগুলো আপনার বন্ধুরা ছাড়া আর কেউ দেখতে পারবে না।

০২. আপনার স্টোরি আপনার বন্ধুরা ছাড়া আর কেউ দেখতে পারবে না।

০৩. আপনার প্রফাইল ফটো ও কাভার ফটোর ফুল সাইজ (Full Size) আপনার বন্ধুরা ছাড়া আর কেউ দেখতে পারবে না।

ফেসবুক প্রফাইল লক বা প্রাইভেট করলে পুরনো ফ্রেন্ডদের কী হবে?

ফেসবুক প্রফাইল লক করলে পুরনো ফ্রেন্ডরা ফ্রেন্ডই থেকে যাবে।

তবে ফ্রেন্ড লিস্ট থেকে আপনি চাইলে যেকাউকে আনফ্রেন্ড করে ফেলতে পারবেন।

আর যাকে আনফ্রেন্ড করবেন সে আর আপনার ফেসবুক পোস্ট দেখতে পারবে না।

ফলে নতুন করে কোনো পোস্টে রিয়াক্ট, কমেন্ট করতে পারবে না। তবে পূর্বের করা রিয়াক্ট ও কমেন্টস ঠিকই থেকে যাবে।

ফেসবুক প্রফাইল লক বা প্রাইভেট করলে পুরনো পোস্ট কী হবে?

ফেসবুক প্রফাইল লক করলে আপনার প্রফাইলে থাকা সকল পুরনো পোস্ট নিজে থেকেই Public থেকে Private হয়ে যাবে।

যার ফলে আপনার Friend ছাড়া অন্য কেউ সেগুলোতে রিয়াক্ট, কমেন্ট করতে পারবে না, এমনকি সেসব পোস্ট তারা দেখতেও পারবে না।

যদি আপনার Follower হয় তাও আপনার পোস্ট দেখতে পারবে না।
চলুন জেনে নেওয়া যাক ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে।

কিভাবে ফেসবুক প্রফাইল লক করা যায়?

০১. আপনার মোবাইল ফোনে থাকা Facebook অ্যাপ্লিকেশনটি খুলুন। তাহলে আপনি সরাসরি অ্যাপের নিউজ ফিডে অবতরণ করবেন।

উপরের মেনু বারে একেবারে ডান পাশে আপনার প্রফাইল ছবি যুক্ত তিন রেখা অপশন দেখতে পাবেন তাতে ক্লিক করুন।

ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে

০২. তারপর, ফেসবুক প্রফাইলে ঢুকতে আপনার নামের উপর ক্লিক করুন।

☞ আরো পড়ুন:  ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়। | ফেসবুক আইডি ফেমাস করার উপায়।

ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে

এটিতে ক্লিক করার সাথে সাথে, আপনি আপনার প্রোফাইল পৃষ্ঠায় প্রবেশ করবেন।

যেখানে আপনি আপনার প্রোফাইল ফটো, কাভার ফটো, প্রফাইল ডিটেইলস, পোস্ট ইত্যাদি অপশন দেখতে পাবেন।

০৩. আপনার প্রোফাইল নামের নিচে ডান পাশে ত্রি ডট অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে ডিসপ্লেতে একটি মেনু তালিকা প্রদর্শিত হবে।

ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে

০৪. প্রদর্শিত মেনু তালিকা থেকে Lock Profile লেখা অপশনটিতে ক্লিক করুন।

ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে

০৫. আপনার ফেসবুক প্রফাইল লক করলে কী কী পরিবর্তন হবে তা লেখা দেখাবে।

আপনাকে নিচের Lock your profile লেখা অপশনে ক্লিক করলেই আপনার ফেসবুক প্রফাইলটি লক হয়ে যাবে।

ফেসবুক প্রফাইল লক করে কিভাবে

এরপর কেউ সরাসরি আপনার পোস্ট দেখতে পারবে না। তবে আপনাকে সার্চ করতে এবং ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারবে।

আর আপনি তা এক্সেপ্ট করলেই আপনার ফ্রেন্ড হয়ে যাবে তখন সে আপনার পোস্ট দেখতে পারবে এবং তাতে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবে।

পরবর্তীতে আপনি যেকোনো সময় আপনার ফেসবুক প্রফাইল আনলক করে Public করে ফেলতে পারেন।

ফেসবুক প্রফাইল লক করার নিয়ম আশা করি ভালোভাবেই বুঝতে পেরেছেন। কোথাও কোনো সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাতে পারে।

100% LikesVS
0% Dislikes

Robin Miah

আমি রবিন মিয়া, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!