মোবাইল টিপস

সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ দেওয়ার এই ৯ টি টিপস জেনে নিন এখনি।

মোবাইল চার্জ দেওয়ার সঠিক নিয়ম ২০২৪।

বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন ছাড়া এক দিনও কল্পনা করা যায়না। আমরা আমাদের প্রাত্যহিক দিনে স্মার্টফোনকে বিনোদন ছাড়াও নানা কাজে ব্যবহার করে থাকি।

আমাদের সবারই কমপক্ষে একটি করে স্মার্টফোন আছে। এন্ড্রয়েড, আইফোন, উইন্ডোজ কিংবা অন্য কোনো অপারেটিং সিস্টেমের ফোন, যে যাই ব্যবহার করিনা কেনো আমাদেরকে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

সেসব সমস্যাগুলোর মধ্যে একটি কমন সমস্যা হলো, স্মার্টফোনের ব্যাটারির কার্যক্ষমতা কমে যাওয়া।

তাইতো অনেকেই প্রশ্ন করে, “এন্ড্রয়েড ফোনে চার্জ হতে দেরি হয় কেন? মোবাইলের ব্যাটারি ফুলে যায় কেন? মোবাইলের চার্জ কমে যাওয়ার কারণ কী? মোবাইলে চার্জ থাকে না কেন? ইত্যাদি ইত্যাদি।”

স্মার্টফোনের বয়স বাড়ার সাথে সাথে ব্যাটারির কার্যক্ষমতা কিছুটা কমে যাওয়া স্বাভাবিক।

তবে স্মার্টফোনের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায়গুলো জানা থাকলে আপনার ফোনের ব্যাটারি কার্যক্ষমতা আরো বেশি দিন স্থায়ী হবে।

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায় জানতে হলে মোবাইল চার্জ দেওয়ার সঠিক নিয়ম জেনে নেওয়া জরুরি।

আপনার কাছে মনে হতে পারে, মোবাইল চার্জ দেওয়ার নিয়ম এ আর এমন কী!

শুনে হয়তো হেসেও ফেলেছেন। সঠিকভাবে মোবাইলে চার্জ দেওয়ার নিয়ম না জানার কারণে আমরা অনেক ভুল করে থাকি আর যার প্রভাব ব্যাটারির উপর পড়ে।

মোবাইল চার্জ করার সঠিক নিয়ম ২০২১।
মোবাইল চার্জ করার সঠিক নিয়ম ২০২১।

এর আগে মোবাইলের চার্জ দীর্ঘসময় পর্যন্ত ধরে রাখার কার্যকরী উপায়গুলো নিয়ে আলোচনা করেছিলাম।

আর আজকের এই পোস্টের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে সঠিকভাবে মোবাইল ফোন চার্জ দেওয়ার নিয়ম।

মোবাইল চার্জ করার সঠিক নিয়ম ২০২৪।

০১: সব সময় নিজস্ব চার্জার ব্যবহারের চেষ্টা করুন।

আমরা যেখানে সেখানে চার্জার পেলেই ফোন চার্জ দেওয়া শুরু করে দেই। যা মোটেও ঠিক নয়।

মোবাইলের মাইক্রো ইউএসবি পোর্টে অনেক চার্জারই সাপোর্ট করতে পারে।

তবে চার্জ দেওয়ার সময় আসল চার্জার ব্যবহার না করলে ব্যাটারির চার্জ ধরে রাখার ক্ষমতা ধীরে ধীরে কমতে থাকে।

০২: সস্তা চার্জার ব্যবহার না করা।

আপনার ফোনের চার্জার যদি নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে চেষ্টা করুন আসল চার্জার কিনে ব্যবহার করতে। যদি দাম বেশি হয় তাও।

ভালো চার্জার ব্যবহার করলে আপনার ফোনের ব্যাটারি ভালো থাকবে আর ফোনের চার্জও অনেক সময় পর্যন্ত ব্যাকআপ দিবে।

তাই বাজারে পাওয়া সস্তা চার্জার কেনা থেকে বিরত থাকুন। সস্তা চার্জার ব্যবহার মোবাইলে চার্জ দেরিতে হওয়ার কারণ।

পাওয়ার ব্যাংক এর ক্ষেত্রেও একই নির্দেশনা অনুসরণ করুন।

০৩: সুরক্ষা কেস খুলে চার্জ দিন।

আমরা আমাদের ফোনের বাড়তি সুরক্ষার জন্য কেসিং বা ব্যাক কাভার ব্যবহার করে থাকি। তবে মোবাইল ফোন চার্জ দেওয়ার পূর্বে তা খুলে রাখা প্রয়োজন।

কারণ, ফোন চার্জ দিলে ব্যাটারি কিছুটা গরম হয়। আর ফোনের কেসিং থাকা অবস্থায় চার্জে দিলে তাপ আটকে ফোনকে অতিরিক্ত গরম হয়ে দেয়।

০৪: সারারাত মোবাইল চার্জ দিবেন না।

ফোনের ব্যাটারি চার্জ করতে আমরা অনেকেই একটি কমন ভুল করে থাকি তা হলো, আমরা আমাদের ফোন ঘুমোতে যাওয়ার পূর্বে চার্জে লাগিয়ে দেই। আর তা সারা রাত চার্জারের সাথে সংযুক্ত থাকে।

এটা করা মোটেও ঠিক নয়। ফোন চার্জ হতে দুই-আড়াই ঘন্টা যাই লাগুক না কেন ব্যাটারি শতভাগ চার্জ হওয়ার পূর্ব মূহুর্তে চার্জার থেকে ফোন খুলে রাখতে হবে।

০৫: মোবাইল চার্জ দেওয়ার সঠিক সময় কখন?

আপনার হয়তো মনে হচ্ছে, “মোবাইল চার্জ দেওয়ার জন্য আবার সময় হিসাব করতে হয় নাকি!” আপনার মোবাইলের ব্যাটারির স্বাস্থ্য ভালো রাখতে অবশ্যই সঠিক সময়ে চার্জ দিতে হবে।

মোবাইলের চার্জ যখন ৫০% এর নিচে নেমে আসবে তখন চার্জে বসাবেন।  কখনো ২০% এর নিচে চার্জ নিয়ে না আসাই ভালো। আবার চার্জ ৯০%-৯৫% এর বেশি না করা ভালো।

অর্থাৎ মোবাইল ফোন শতভাগ চার্জ দিবেন না। তবে মাসে ১ বার অথবা ২ বার ফোনের ব্যাটারি ০ থেকে ১০০% পর্যন্ত চার্জ করবেন।

০৬: মোবাইল চার্জে রেখে ব্যবহার করবেন না।

কারো কারো বাজে একটি অভ্যাস আছে। তা হলো, মোবাইল চার্জে রাখা অবস্থায় ব্যবহার করা।

মোবাইল চার্জে রাখা অবস্থায় ফোনে কথা বললে, ভিডিও দেখলে, ইন্টারনেট ব্রাউজ করলে, গেম খেললে অথবা অন্য কোনো কাজে ব্যবহার করলে ব্যাটারির উপর প্রচুর চাপ পরে।

তখন ব্যাটারি প্রচুর গরম হয়ে যায়। এর ফলে ব্যাটারি ড্যামেজ এমনকি বিস্ফোরণ পর্যন্ত হতে পারে।

০৭: মোবাইল দ্রুত চার্জ হবে যেভাবে।

অনেকের প্রশ্ন, কীভাবে মোবাইল খুব দ্রুত চার্জ দেওয়া যায়? আপনার যদি খুব বেশি জরুরি হয় তাহলে মোবাইল বন্ধ করে চার্জ দিতে পারেন।

মোবাইল বন্ধ করে চার্জ দিলে খুব দ্রুত চার্জ হবে। মোবাইল বন্ধ করা বাদেও যদি এয়ারপ্লেন মোড অন করে চার্জ দেন তাহলেও দ্রুত চার্জ হবে।

আপনার মোবাইল যদি এয়ারপ্লেন মোডে রাখা হয় তাহলে সব ধরনের ওয়ার‍লেস ফিচার বন্ধ হয়ে যাবে। চার্জ দেওয়া শেষ হলে এয়ারপ্লেন মোড আবার বন্ধ করে রাখবেন।

০৮: কম্পিউটার থেকে ফোন চার্জ করবেন না।

আমাদের যাদের কম্পিউটার রয়েছে অনেকেই যা করি তা হলো, আমাদের স্মার্টফোনটি কম্পিউটার দিয়ে চার্জ দেই।

ফোনের চার্জারের ভোল্টেজ আর কম্পিউটারের ভোল্টেজ এর মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। কম্পিউটার নরমাল প্রসেসে চার্জ সরবরাহ করে।

আপনি খেয়াল করে দেখবেন কম্পিউটার থেকে মোবাইল চার্জ হতে অপেক্ষাকৃত বেশি সময় লাগে। তাই ব্যক্তিগত ভাবে পরামর্শ দিব, কম্পিউটার থেকে আপনার ফোন চার্জ দিবেন না।

০৯: ভালোমানের ব্যাটারি সেভার অ্যাপ ব্যবহার করুন।

কখনো কখনো আমাদের ফোনে নিজে থেকেই কিছু অ্যাপ্লিকেশন ব্যাকগ্রাউন্ডে অযথা চলতে থাকে আর আমাদের ফোনের ব্যাটারির চার্জ অপচয় করে।

তবে আপনি যদি ভালোমানের ব্যাটারি অপটিমাইজেশন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করেন তাহলে চার্জ অপচয় রোধ হবে এবং ব্যাটারি গরম হয়ে গেলে ঠান্ডা করতে সাহায্য করবে।

আর এর ফলে আপনার ফোনের ব্যাটারি আরো বেশি ব্যাক আপ দিবে। এরকম কিছু ভালো মানের অ্যাপ্লিকেশন হলো: Battery Doctor, Accu Battery, Dfndr battery ইত্যাদি।

পরিশেষে: উপরোক্ত মোবাইলের ব্যাটারি চার্জ দেওয়ার নিয়মগুলো মেনে চললে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি আরো বেশি দিন ভালো থাকবে।

যদি ফোন চার্জ দেওয়ার নিয়ম নিয়ে আরো কোনো কিছু জানার থাকে তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ।

100% LikesVS
0% Dislikes

Robin Miah

আমি রবিন মিয়া, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!