অ্যাডসেন্সব্লগিং টিপস

ব্লগিং ও অ্যাডসেন্স নিয়ে যত প্রশ্ন এবং তার উত্তর ২০২৪।

প্রশ্ন-০১: মোবাইল দিয়ে কি ব্লগিং করা যায়?

উত্তর: জ্বি, স্মার্টফোন দিয়েও ব্লগিং করা যায়। আমি নিজেও স্মার্টফোন দিয়ে ব্লগিং করে টাকা উপার্জন করি। আমার পরিচিত অনেকেই করে।

ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করা থেকে শুরু করে, কন্টেন্ট তৈরি, সাইটে এড নেটওয়ার্ক যুক্ত করে অর্থ উপার্জন পর্যন্ত প্রায় সবই করা যায় স্মার্টফোন দিয়ে।

প্রশ্ন-০২: মুভি ডাউনলোড ওয়েবসাইটে কি গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি না, সিনেমা (Movie) ডাউনলোডিং ওয়েবসাইটে গুগল অ্যাডসেন্সের অনুমোদন পাওয়া যায় না।

তবে আপনি হয়তো লক্ষ করবেন সিনেমা ডাউনলোড করার ওয়েবসাইটগুলোতে বিজ্ঞাপন দেখা যায়! এগুলো গুগল অ্যাডসেন্সের বিজ্ঞাপন না, অন্য কোনো বিজ্ঞাপন সংস্থার (Ad Network) বিজ্ঞাপন। আশা করি, বুঝতে পেরেছেন।

প্রশ্ন-০৩: ব্লগার না কি ওয়ার্ডপ্রেস? কোনটাতে দ্রুত এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: গুগল অ্যাডসেন্স কর্তৃপক্ষ আপনার ওয়েবসাইটটি যখন পর্যালোচনা করে তখন তারা আপনার সাইটের কন্টেন্ট দেখে। আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্টগুলো তাদের কাছে যদি মানসম্মত মনে হয় তাহলে তারা আপনার আবেদন অনুমোদন করবে।

এখানে আপনার ওয়েবসাইটটি ব্লগার না কি ওয়ার্ডপ্রেস, না কি অন্য কোনো CMS এ তৈরি তারা তা দেখবে না। অনেককেই আপনি বলতে শুনবেন যে, “ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে দ্রুত অ্যাডসেন্সের অনুমোদন পাওয়া যায়।” তবে তা মোটেও সত্য নয়।

কারণ, ব্লগার এবং অ্যাডসেন্স দুটোই কিন্তু গুগল এর প্ল্যাটফর্ম, তাই ব্লগারকে ছোট করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। আশা করি, বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন।

প্রশ্ন-০৪: ডট xyz কি টপ লেভেল ডোমেইন?

উত্তর: জ্বি, ডট কম (.Com), ডট নেট (.Net), ডট ইন (.In) ইত্যাদি ডোমেইনের মতো ডট এক্সওয়াইজেট (.Xyz)-ও হলো একটি টপ লেভেল ডোমেইন নাম।

এটি ICANN-এর নতুন জাতিবাচক টপ-লেভেল ডোমেইন (gTLD) প্রোগ্রামে প্রস্তাব করা হয়েছিল, এবং ২ জুন, ২০১৪-তে সাধারণ জনগণের জন্য উপলব্ধ হয়ে ওঠে।

প্রশ্ন-০৫: ব্লগিং এর দিন কি শেষ?

উত্তর: এক কথায় উত্তর দেওয়া যাবে, “না!” ইন্টারনেটে যেমন আলাদা জিনিসগুলোর প্রসারণ ঘটছে ঠিক তেমনই ব্লগের ও প্রসারণ ঘটছে, অনলাইনে এতো বেশি পরিমাণে ব্লগ রয়েছে যে হঠাৎ করে এক দিনে সেগুলো হারিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়।

ব্লগিং শেষ হয়নি আর ভবিষ্যতেও এটা বিলুপ্ত হবে না, আপনি যদি এখনো লিখতে ভালবাসেন তো অনেকে রয়েছে তারা পড়তে ভালোবাসে!

প্রশ্ন-০৬: ব্লগিংকে কি পেশা হিসাবে নেওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি, ব্লগিংকে পেশা হিসাবে নেওয়া যায়। তবে এর জন্য আপনাকে ব্লগিং সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা থাকতে হবে। প্রচুর শ্রম ও সময় ব্যয় করতে হবে।

তবে যত দিন যাচ্ছে মানুষ ততই ভিডিও কন্টেন্টের দিকে ঝুকছে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আর শুধু ব্লগিং নিয়ে পড়ে না থেকে পাশাপাশি অন্য কিছুও করতে হবে।

প্রশ্ন-০৭: ব্লগিং শুরু করতে কী কী প্রয়োজন?

উত্তর: আপনি যদি ব্লগিং শুরু করতে চান তবে অবশ্যই আপনার নিচের জিনিসগুলো প্রয়োজন হবে।

🔵 একটি ডিজিটাল ডিভাইস। যেমন: স্মার্ট ফোন, ট্যাব অথবা কম্পিউটার এগুলোর মধ্যে যেকোনো একটি।

🔵 ইন্টারনেট কানেকশন।

🔵 একটি মেইল অ্যাকাউন্ট।

🔵 ব্লগিং শুরু করার জন্যে আপনাকে Blogger অথবা WordPress এর মধ্যে যেকোনো একটি প্লাটফর্ম বেছে নিতে হবে।
WordPress হলে অবশ্যই একটি টপ লেভেল ডোমেইন ও হোস্টিং কেনার প্রয়োজন পরবে।

প্রশ্ন-০৮: কীভাবে ব্লগিং শুরু করব?

উত্তর:

ধাপ-১. একটি সঠিক ডোমেইন নাম নির্বাচন করুন।

ধাপ-২. ভালো কোনো কোম্পানির হোস্টিং সার্ভিস ব্যবহার করুন। (Blogger CMS হলে হোস্টিং ক্রয় করার প্রয়োজন নেই।)

ধাপ-৩. আপনার ব্লগ সাইটে সুন্দর একটি থিম/টেমপ্লেট একটিভ করে তা ভালো ভাবে কাস্টমাইজ করুন।

ধাপ-৪. নিয়মিত আপনার ব্লগে কন্টেন্ট বা আর্টিকেল প্রকাশ করুন।

ধাপ-৫. আপনার ব্লগটিতে অন পেইজ এসইও এবং অফ পেইজ এসইও করুন।

ধাপ-৬. গুগল অ্যাডসেন্স বা অন্য কোনো অ্যাড নেটওয়ার্ক যুক্ত করে অর্থ উপার্জন করুন।

প্রশ্ন-০৯: ব্লগ ওয়েবসাইটে ভিজিটর কীভাবে বাড়াবো?

উত্তর: কী কী উপায়ে ব্লগ ওয়েবসাইটের ভিজিটর বাড়ানো যায় তা নিচে দেওয়া হলো-

ব্লগ ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানোর উপায়।

১. নিয়মিত মানসম্মত কনটেন্ট প্রকাশ করা।

২. পোষ্টের মধ্যে Internal Linking করা।

৩. সাইটে “Popular Posts” উইজেড যুক্ত করা।

৪. “Related Posts” উইজেড যুক্ত করা।

৫. সাইটের Load Time অপটিমাইজ করা।

৬. Mobile Friendly থিম/টেমপ্লেট ব্যবহার করা।

৭. পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করার ব্যবস্থা রাখা।

৮. পোস্টে আকর্ষণীয় টাইটেল বা শিরোনাম ব্যবহার করা।

৯. প্রশ্নোত্তর সাইট থেকে ভিজিটর নিয়ে আসা।

১০. এসইও (SEO) করা।

১১. পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্যাকলিংক করা।

১২. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখা।

১৩. সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট শেয়ার করা।

১৪. গেস্ট পোস্ট করা।

১৫. প্রতিটি পোস্টে কমেন্ট অপশন চালু রাখা এবং প্রতিটি কমেন্টের দ্রুত জবাব দেওয়া।

১৬. কিওয়ার্ড রিসার্চ করা।

ব্লগ থেকে টাকা আয় করার উপায়।
ব্লগ থেকে টাকা আয় করার উপায়।

প্রশ্ন-১০: ডোমেইনের বয়স কতো দিন হলে গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করা ভালো?

আপনি যদি Blogger-এর সাব ডোমেইন দিয়ে এডসেন্স এপ্রুভ করাতে চান তাহলে অন্তত আপনাকে ৬ মাস অপেক্ষা করতে হবে।

আর যদি আপনার সাইটে একটি টপ লেভেল ডোমেইন যুক্ত করা থাকে তাহলে ডোমেইনের বয়স কোনো ব্যপার না। আপনাকে দেখতে হবে আপনার সাইটে কতগুলো মানসম্মত পোস্ট আছে আর সাইটটি সব দিক দিয়ে পরিপূর্ণ কিনা। সব ঠিকঠাক থাকলে ডোমেইনের বয়স নিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই।

প্রশ্ন-১১: ইসলামি ওয়েবসাইটে কি গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি, ইসলামি ওয়েবসাইটেও গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়া যায়।

প্রশ্ন-১২: পিডিএফ বই ডাউনলোড ওয়েবসাইটে কি গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: না, পিডিএফ বই ডাউনলোড ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায় না। কারণ পিডিএফ বই ডাউনলোড ওয়েবসাইটে যেসকল বইয়ের পিডিএফ ফাইল শেয়ার করা হয় তার জন্য লেখক বা প্রকাশকের কোনো অনুমতি নেওয়া হয় না।

প্রশ্ন-১৩: সাব-ডোমেইনে কি গুগল এ্যাডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি সাব ডোমেইন যুক্ত ওয়েবসাইটেও গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়া যায়।

প্রশ্ন-১৪: ফ্রি থিম ব্যবহার করে কি গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: ফ্রি থিম/টেম্পলেট ব্যবহার করেও গুগল অ্যাডসেন্সের অনুমোদন পাওয়া যায়।

তবে পেইড থিম/টেম্পলেট ব্যবহার করলে আপনি বাড়তি কিছু সুযোগ সুবিধা পাবেন যা ফ্রি থিম/টেম্পলেটে পাবেন না। তাই চেষ্টা করবেন আপনার সাইটে পেইড থিম/টেম্পলেট ব্যবহার করার জন্য। ব্লগিং শুরু করার প্রথম দিকে সম্ভব না হলে পরবর্তী সময়ে অবশ্যই চেষ্টা করবেন ফ্রি থিম/টেম্পলেট পরিবর্তন করে পেইড থিম/টেম্পলেট ব্যবহার করার জন্য।

প্রশ্ন-১৫: লিরিক্স ওয়েবসাইটে কি গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি, লিরিক্স ওয়েবসাইটে অবশ্যই গুগল অ্যাডসেন্সের অনুমোদন পাওয়া যায়।

প্রশ্ন-১৬: প্রশ্নোত্তর সাইটে কি এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি, প্রশ্নোত্তর সাইটে গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাওয়া যায়। যেমনটি আপনি আমাদের প্রযুক্তি প্রিয় প্রশ্নোত্তর সাইটে গুগল অ্যাডসেন্সের বিজ্ঞাপন দেখতে পান।

প্রশ্ন-১৭: ব্লগার ওয়েবসাইটে সর্বোচ্চ কয়টা পোস্ট করা যায়?

উত্তর: ব্লগার ওয়েবসাইটে পোস্ট করার ক্ষেত্রে কোনো সীমা রাখা হয়নি। কাজেই আপনি আপনার ব্লগার সাইটে মান ঠিক রেখে যত খুশি পোস্ট করুন। কারণ সাইটে যত বেশি পোস্ট ততো বেশি ভিজিটর আসবে।

প্রশ্ন-১৮: ব্লগস্পট সাব ডোমেইনে কি এডসেন্স পাওয়া যায়?

উত্তর: জ্বি, ব্লগস্পট সাব ডোমেইনে এডসেন্স অনুমোদন পাওয়া যায়। তবে তা সময় সাপেক্ষ ব্যপার। আপনার সাইটে একটি টপ লেভেল ডোমেইন যুক্ত থাকলে যত তাড়াতাড়ি গুগল এডসেন্সের অনুমোদন পাবেন ব্লগস্পটের সাব ডোমেইন দিয়ে ততো তাড়াতাড়ি পাবেন না।

আর যেহেতু গুগল এডসেন্স ডোমেইনে এপ্রুভ হয় তাই কিছু টাকা খরচ হলেও চেষ্টা করবেন একটি টপ লেভেল ডোমেইন ক্রয় করে সাইটে যুক্ত করে তা থেকে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার।

তাহলে খুব দ্রুত এডসেন্স পেয়ে যাবেন। এবং আপনি চাইলে পরবর্তীতে আপনার সাইটটি ব্লগার থেকে ওয়ার্ডপ্রেসেও স্থানান্তর করতে পারবেন।

ডট কম (.Com), ডট নেট (.Net), ডট টপ (.Top) ইত্যাদি টপ লেভেল ডোমেইনের তুলনায় ডট এক্সওয়াইজেট (.Xyz) ডোমেইনের দাম অনেক কম।

আপনি চাইলে অল্প টাকায় একটি xyz ডোমেইন কিনেও সাইটে যুক্ত করে তারপর গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন। আশা করি, ব্যপারটি বুঝতে পেরেছেন।

প্রশ্ন-১৯: ফন্ট ডাউনলোডিং ওয়েবসাইটে কি এডসেন্স পাওয়া যাবে?

উত্তর: জ্বি, ফন্ট ডাউনলোডিং ওয়েবসাইটে অবশ্যই গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাবেন।

প্রশ্ন-২০: ব্লগার ওয়েবসাইটে এক দিনে সর্বোচ্চ কয়টা পোস্ট করা যায়?

উত্তর: ব্লগার ওয়েবসাইটে এক দিনে সর্বোচ্চ কয়টা পোস্ট করা যায়, এর কোনো সিমা নেই। আপনি চাইলে আপনার যতগুলো ইচ্ছে করতে পারবেন, তবে চেষ্টা করবেন পোস্টের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে।

প্রশ্ন-২১: ব্লগারে একটি জিমেইল দিয়ে সর্বোচ্চ কয়টা ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়?

উত্তর: একটি জিমেইল থেকে একটি ব্লগার আইডি খুলতে পারবেন আপনি। তবে একই আইডি দিয়ে যত ইচ্ছা ওয়েবসাইট খুলতে পারবেন ব্লগারে, তাও আবার বিনামূল্যে।

প্রশ্ন-২২: ব্লগারে কি প্রশ্ন উত্তর ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়?

উত্তর: ব্লগারে প্রশ্ন উত্তর ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন না। তবে সাধারণ টেমপ্লেট ব্যবহার করেই আপনি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইট কাস্টমাইজ করার মাধ্যমে দেখতে প্রশ্ন-উত্তর ওয়েবসাইটের মতো বানিয়ে ফেলতে পারেন।

তবে এখানে সাধারণ পাঠকরা প্রশ্ন করার সুযোগ পাবে না। আপনার সাইটে আপনাকেই প্রশ্ন করতে হবে আবার আপনাকেই উত্তর দিতে হবে।

প্রশ্ন-২৩: ব্লগার সাইটে কি হোস্টিং কেনা লাগে?

উত্তর: না, Blogger CMS দিয়ে তৈরি ওয়েবসাইটে আলাদাভাবে হোস্টিং কেনার প্রয়োজন নেই।

প্রশ্ন-২৪: ব্লগ ওয়েবসাইটের পোস্টগুলো সর্বনিম্ন কত শব্দের হতে হয়?

উত্তর: ব্লগ ওয়েবসাইটের পোস্টগুলো সর্বনিম্ন এত শব্দের হতে হয়, এমন কোনো ধরাবাঁধা নিয়ম নেই। আপনার ব্লগ আপনি আপনার পোস্টের বিষয়ের উপর নির্ভর করে পোস্টের আকার ঠিক রাখবেন।

প্রশ্ন-২৫: অ্যাডসেন্সের জন্য কোথায় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করলে ভালো হবে?

উত্তর: প্রতি মাসে ১০০ ডলারের বেশি হলে Adsense তা পাবলিশারের অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেয়। বাংলাদেশী অ্যাকাউন্ট পাবলিশারা সরাসরি ব্যাংক এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে এই অর্থ উত্তোলন করতে পারেন।

তবে আমি পার্সোনালি Islami Bank Bangladesh Ltd এ অ্যাকাউন্ট এড করতে বলবো। অনেকেরই এই ব্যাংক প্রথম পছন্দ। এরপর তালিকায় আমি রাখবো Dutch-Bangla Bank Limited-কে।

প্রশ্ন-২৬: কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ লিখলে খুব তাড়াতাড়ি সফল হওয়া যায়?

উত্তর: আপনার যে বিষয়ে ভালো জ্ঞান আছে এবং যে বিষয় নিয়ে কাজ করতে ভালো লাগে আপনি সেটা নিয়ে কাজ শুরু করেন। তা না হলে কিছুদিন পরে কাজের আগ্রহ হারিয়ে ফেলবেন। নয়তোবা লেখার কিছু পাবেন না।

প্রশ্ন-২৭: ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কোন Plugin ব্যবহারের মাধ্যমে Content কপি হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা যায়, মানে আমার কনটেন্ট কেউ কপি করতে পারবে না?

উত্তর: আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে “WP Content Copy Protection & No Right Click” নামের প্লাগিন ব্যবহার করতে পারেন।

প্রশ্ন-২৮: অ্যাডসেন্সের পিনের জন্য আবেদন করার সময় বিভাগ ভুল দিয়ে ফেলেছি, এটা সমাধানের কোনো পথ আছে?

উত্তর: হ্যাঁ, আছে। আপনার অ্যাকাউন্টের ১০ ডলার পূর্ণ হওয়ার আগে তা এডিট করে নিতে পারেন। আর যদি ভুল ঠিকানায় চিঠি পাঠানো হয়, পুনরায় তো আবার সংশোধনের সুযোগ থাকছেই।

প্রশ্ন-২৯: ইংরেজি সাইটে বাংলা কিংবা বাংলা সাইটে ইংরেজি কন্টেন্ট দিলে কি  অ্যাডসেন্স পেতে সমস্যা হবে?

উত্তর: না, এতে কোনো সমস্যা হবে না।

প্রশ্ন-৩০: ডোমেইনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর কী হবে? পরবর্তীতে কি কিনতে পারবো নাকি হাতছাড়া হয়ে যাবে?

উত্তর: Expired হয়ে গেলে সেটা পাবলিকলি এভেইলেবল হয়ে যাবে এবং যে কেউ সেটাকে রেগুলার প্রাইসে কিনতে পারবে।

এক্ষেত্রে অনেক কোম্পানি আছে যারা মেয়াদউত্তীর্ণ ডোমেইনের প্রতি নজর রাখে, যদি তাদের আপনার ডোমেইনটি পছন্দ হয়ে যায়, তাহলে সেটা তারা কিনে নিবে। ফলে আপনি আপনার ডোমেইনটি চিরতরে হারাবেন।

প্রশ্ন-৩১: একবার এডসেন্স পাওয়ার পর যদি ব্লক হয়। সেই সাইটে কি আবার কোনো ভাবে এডসেন্স ফিরিয়ে আনা যায়?

উত্তর: হ্যাঁ, যায়। পূর্বের অ্যাডসেন্সের  কোড রিমুভনতুন মেইল এবং নতুন ডিভাইস দিয়ে আবার আবেদন করলে পাবেন।

100% LikesVS
0% Dislikes

Robin Miah

আমি রবিন মিয়া, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!