ফেসবুক টিপস

ফেসবুকে লাইক কমেন্ট বেশি পাওয়ার উপায় ২০২৪।

ফেসবুকে বেশি লাইক কমেন্ট পাওয়ার উপায় ২০২৪-

আমরা সবাই কম-বেশি ফেসবুক চালাই। তবে ফেসবুকে কিন্তু সবাই সমান জনপ্রিয় না।

ফেসবুকে জনপ্রিয়তা পরিমাপের একক হিসেবে রিয়াক্টকে কল্পনা করতে পারি। যে যত বেশি জনপ্রিয় তার পোস্টে রিয়াক্টও পড়ে তত বেশি।

ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার সহজ উপায় হচ্ছে বিভিন্ন ভাবে নিজের পোস্টে কমেন্ট ও রিয়াক্ট বাড়িয়ে নেওয়া।

তাই অনেকেই নিজের পোস্টে রিয়াক্ট ও কমেন্ট বাড়াতে চান। আজকের পোস্টে আমি ফেসবুকে বেশি লাইক পাওয়ার উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।

আশা করি, নিচে দেওয়া Facebook এ বেশি লাইক পাওয়ার উপায় সমূহ মেনে চললে অবশ্যই ভালো ফল পাবেন। তাই পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন আর ফেসবুকে লাইক বাড়িয়ে নিন।

ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার টিপস।
ফেসবুকে বেশি লাইক কমেন্ট পাওয়ার উপায় ২০২২

ফেসবুকে বেশি বেশি লাইক পাওয়ার উপায় ২০২৪-

একটিভ থাকুন।

ফেসবুকে নিয়মিত একটিভ থাকুন। নিয়মিত একটিভ থাকা মানে এই নয় যে আপনার দৈনন্দিন কাজ কর্ম বাদ দিয়ে সারাদিন ফেসবুকে পড়ে থাকবেন।

কাজ কর্ম শেষ করে যখন অবসর সময় পাবেন তখন মাঝে মাঝে ফেসবুকে এসে একটু আকটু সময় কাটাবেন।

বন্ধু বাড়ান।

আপনার ফেসবুক প্রফাইলে যদি বন্ধুই তেমন না থাকে তাহলে কারা React দিবে আর কারাইবা Comment করবে! তাই আপনার ফেসবুক প্রফাইলে বন্ধুর সংখ্যা বাড়ান।

বাছাই করে বন্ধু বানান।

ফেসবুকে শুধু বন্ধু বাড়ালেই যে React ও Comment বেশি হবে এটা ভুল ধারনা। কারণ ফেসবুকে সবাইতো আর নিয়মিত একটিভ থাকেনা। আর থাকলেও সবাই কিন্তু রিয়াক্ট, কমেন্ট করেনা।

তাই বন্ধু বানাতে একটু কৌশল অবলম্বন করতে হবে। আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টের বন্ধুদের সাম্প্রতিক পোস্ট করা ছবি গুলোতে নজর রাখুন।

☞ আরো পড়ুন:  ভ্লগিং কী? নতুনরা কীভাবে ভ্লগ ভিডিও তৈরি করে সফলতা অর্জন করবে?

সেগুলোতে কারা নিয়মিত React ও Comment করে। আপনি তাদেরকেই ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠান।

React ও Comments করুন।

কিছু পেতে হলে কিছু দিতে হয়, এটাই জগতের নিয়ম। তাই আপনি অন্যদের কাছ থেকে রিয়াক্ট, কমেন্ট আশা করবেন অথচ নিজে তাদের পোস্টে রিয়াক্ট, কমেন্ট করবেন না, এটা কী করে হয়!

তাই বন্ধুদের করা পোস্টে নিয়মিত রিয়াক্ট ও মন্তব্য করুন। তবে অহেতুক ‘হাহা’ রিয়াক্ট ও নেতিবাচক মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন।

নিয়মিত পোস্ট করুন।

নিজে নিজে ঠিক করুন, ঠিক কতো দিন পর পর পোস্ট করবেন। পোস্টের ধারাবাহিকতা রক্ষা করুন।

তবে খুব বেশি দিন পর পর পোস্ট দেওয়া যেমন ঠিক নয়, তেমনি খুব ঘন ঘন পোস্ট দেওয়াও ঠিক নয়। এতে বন্ধুরা বিরক্ত বোধ করে।

সঠিক সময়ে পোস্ট করুন।

কিছু দিন লক্ষ্য করুন দিনের ঠিক কোন সময়ে আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টের বন্ধুরা বেশি অনলাইনে থাকে। চেষ্টা করুন ঠিক ঐ সময়ে পোস্ট করার।

যা পরোক্ষভাবে ফেসবুকে বেশী লাইক পাওয়ার উপায় হিসেবে কাজ করবে। সাধারণত আমাদের দেশের মানুষজন বিকেলে ও সন্ধ্যার দিকে বেশি অনলাইনে থাকে, তা মাথায় রেখে পোস্ট করুন।

ছবি ও ভিডিওর সাথে ক্যাপশন জোরে দিন।

আপনি যখনি কোনো ভিডিও বা ছবি ফেসবুকে আপলোড দিবেন তখন তার সাথে ভালো একটি ক্যাপশন জোরে দিন। ভালো ক্যাপশন আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টের বন্ধুদের আকৃষ্ট করবে পোস্টে রিয়াক্ট ও কমেন্ট করতে।

আপনি আমাদের www.techrobin.xyz ওয়েবসাইটে এবং গুগলে খোঁজ করলেই অনেক সুন্দর সুন্দর ফেসবুক ফটো ক্যাপশন পেয়ে যাবেন আপনার পোস্টের জন্য।

পোস্টের প্রাইভেসি Public রাখুন।

আপনি যেকোনো পোস্ট করার সময় তার প্রাইভেসি Public করে রাখবেন। এতে যারা আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টে নেই তারাও আপনার পোস্ট দেখতে পাবে, আর রিয়াক্ট ও কমেন্ট করবে।

☞ আরো পড়ুন:  ফেসবুক প্রফাইল ফটো থেকে React ও Comment অপশন হাইড করবেন যেভাবে।

পোস্টে বন্ধুদের ট্যাগ করতে পারেন।

আপনি চাইলে আপনার পোস্টে বন্ধুদের ট্যাগ করতে পারেন। কোনো পোস্ট বন্ধুদের ট্যাগ করলে পোস্টটি আপনার বন্ধুদের পাশাপাশি যাদের ট্যাগ করবেন তাদের বন্ধুরাও দেখতে পাবে।

এতে রিয়াক্ট ও কমেন্ট বেশি আসবে। তবে অযাচিত ট্যাগ করা মোটেও কাম্য নয়। এতে আপনার বন্ধুরা বিরক্ত বোধ করবে।

Follow অপশন চালু রাখুন।

ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার উপায় আরেকটি হচ্ছে ফেসবুক সেটিংস এ গিয়ে আপনার প্রফাইলের ফলো অপশন অন রাখুন।

এতে আপনি কারো ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট এক্সেপ্ট না করলে সে অটোমেটিক আপনার ফলোয়ার হয়ে যাবে এবং আপনার করা পোস্টগুলো তার নিউজ ফিডে চলে যাবে।

ফেসবুক প্রফাইলে কীভাবে ফলো অপশন যুক্ত করতে হয় তা এখান থেকে জেনে নিতে পারেন।

প্রতিটি Comment এর Reply দিন।

আপনার পোস্টে যারা কমেন্ট করবে তাদের প্রতিটি কমেন্টের উত্তর দিন। আপনার দেওয়া উত্তরগুলোও পোস্টের কমেন্ট হিসেবে গণনা হবে।

আরেকটি কথা, অনেকেই কমেন্টের রিপ্লে সাধারণত tnq u, thnks, tnqs এভাবে দেয়। ধন্যবাদ জানানোর এসব সেকেলে নিয়ম বাদ দেওয়াই উত্তম।

আর কমেন্টের উত্তর এমন ভাবে দেওয়ার চেষ্টা করুন যাতে যার কমেন্ট সে আবার কিছু লিখতে আসে।

চাইলে পোস্টের কমেন্টে বন্ধুদের সাথে মজা কিংবা মিষ্টি ঝগড়া করতে পারেন। এবং মন্তব্যের নেতিবাচক Replay দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

দেরিতে Replay দিন।

পোস্টে বেশি বেশি রিয়াক্ট ও কমেন্ট পরতে এই কৌশলটি খুবই কার্যকর। আপনার পোস্টে করা কমেন্টের উত্তরগুলো একই সময়ে দিবেন না। প্রতিটির উত্তর কমপক্ষে কয়েক ঘন্টা পর পর দিন।

এতে যা হবে তা হলো আপনার পোস্টটি বন্ধুদের নিউজফিডে বার বার আসবে, তাই তারা রিয়াক্ট কমেন্ট করতে বাধ্য হবে।

আর আপনি যখন কোনো পোস্ট করবেন অনেকেই তখন অনলাইনে থাকবে না। এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে তাদের নিউজ ফিডেও এক সময় আপনার পোস্ট চলে যাবে তখন তারা রিয়াক্ট ও কমেন্ট করবে।

☞ আরো পড়ুন:  ম্যাসেঞ্জার অ্যাপের রিংটোন পরিবর্তন করবেন যেভাবে।

অটো লাইক, অটো কমেন্ট নিতে পারেন।

অনেকের প্রশ্ন, ফেসবুকে অটো লাইক, অটো কমেন্ট কিভাবে করব?

আপনি যদি চান তাহলে ফেসবুক অটো লাইক, কমেন্ট নিতে পারেন। যদিও আমি ব্যক্তিগত ভাবে অটো লাইক, কমেন্ট নেওয়ার পক্ষে না।

কারণ অটো লাইক, কমেন্ট নিলে আপনার আইডির নিরাপত্তা বিঘ্ন ঘটতে পারে। এছাড়াও অটো লাইকের আরো কিছু নেতিবাচক দিক আছে। তবে সিদ্ধান্ত আপনার।

ফেসবুকে অটো লাইক নেওয়ার উপায় এবং ফেসবুক অটো কমেন্ট নেওয়ার উপায় এখান থেকে জেনে আসতে পারেন।

ধন্যবাদ।

100% LikesVS
0% Dislikes

Robin Miah

আমি রবিন মিয়া, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!