ফেসবুক টিপস

ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়। | ফেসবুক আইডি ফেমাস করার উপায়।

ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার উপায়। | ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার টিপস।

আফলাইন বলেন কিংবা অনলাইন, আমরা সবাই চাই নিজেকে একটু ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন করতে। বিশেষ করে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চাই নিজেকে আর দশ জনের থেকে আলাদা ভাবে উপস্থাপন করতে।

আমরা সবাই ফেসবুক চালালেও ফেসবুকে কিন্তু সবাই সমান জনপ্রিয় নই। দেখা যার কারো কারো প্রফাইলে প্রচুর পরিমাণের ফ্রেন্ডস, ফলোয়ার থাকে।

যার কারণে সে কোনো পোস্ট করার সাথে সাথেই ঝড়ের গতিতে রিয়াক্ট, কমেন্ট পড়তে থাকে। আবার কারো কারো ফেসবুক ফ্রেন্ডস, ফলোয়ার খুবই কম।

যার জন্য তার প্রফাইলের কোনো পোস্টে রিয়াক্ট, কমেন্ট আসেনা। নিজের প্রফাইলের পোস্টে যখন আশানুরূপ রিয়াক্ট, কমেন্ট না আসে তখন মন খারাপ হওয়াই স্বাভাবিক।

তাইতো অনেকেই জানতে চায়, “কিভাবে ফেসবুকে ফেমাস হওয়া যায়? ফেসবুক আইডি জনপ্রিয় করার উপায় কী?”

ফেসবুক নিয়ে আমার লেখা আরো দুটি জনপ্রিয় আর্টিকেল হলো:

০১: ফেসবুক প্রফাইলে Friends এবং Followers দ্রুত বৃদ্ধি করার ১৫ টি সহজ কৌশল।

০২: ফেসবুকে বেশি বেশি রিয়াক্ট, কমেন্টস পাওয়ার সহজ উপায়।

আর আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি জানতে চলেছেন ফেসবুকে কিভাবে ফেমাস হওয়া যায়।

“ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার টিপস” আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ে কাজে লাগাতে পারলে ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার সহজ উপায়গুলো আয়ত্ত করতে পারবেন।

ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার টিপস।
ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার টিপস।

ফেসবুকে কীভাবে জনপ্রিয় হওয়া যায়? | ফেসবুক আইডি ফেমাস করার উপায়।

০১. ফেসবুকে বেশি বেশি একটিভ থাকুন। তবে ফেসবুকে একটিভ থাকতে গিয়ে যেন আপনার প্রাত্যহিক দিনের কাজ কর্মের কোনো ক্ষতি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা জরুরি।

আপনার প্রাত্যহিক দিনের কাজকর্ম সঠিকভাবে করে অবসর সময়ে চেষ্টা করবেন ফেসবুকে একটিভ থাকতে।

০২. আপনার ফেসবুক প্রফাইলটি সুন্দর করে সাজান। অর্থাৎ ফেসবুক প্রফাইলে সুন্দর একটি কাভার ফটো এবং যেসব প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দেওয়া জরুরি সেগুলো সঠিক ও বিস্তারিত ভাবে দিন, যাতে অন্যান্য ফেসবুক ব্যবহারকারী সহজেই আপনার পরিচয় জানতে পারে।

যেমন: আপনি কোথায় পড়াশোনা করেছেন, আপনার কোথায় থাকেন, কী কাজ করেন, কোথায় কাজ করেন, ইত্যাদি ইত্যাদি।

০৩. ফেসবুকে আপনার নিজের নাম ও ছবি ব্যবহার করুন। এতে আপনার পরিচিত মানুষ জন খুব সহজেই আপনাকে খুজে পাবে।

তবে আপনার যদি একাধিক নাম থেকে থাকে তাহলে আপনার পছন্দের যেকোনো নাম ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি খুলতে পারেন।

০৪. সব সময় ফেসবুক প্রফাইলে আপনার নিজের সেরা ছবি যুক্ত করবেন।

যাতে অন্যান্য ফেসবুক ব্যবহারকারী আপনার সেই ছবিটি দেখে আপনাকে ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠাতে ইচ্ছে পোষণ করে।
০৫. ফেসবুকে দেওয়া প্রফাইল ছবিটি মাঝে মাঝে পরিবর্তন করে নতুন ছবি যুক্ত করুন। (ফেসবুকে ফেমাস হওয়ার সহজ উপায়)

০৬. আপনার ফেসবুক আইডি থেকে নিয়মিত তথ্যমূলক ও জনগুরুত্বপূর্ণ পোস্ট দিন। তবে খুব বেশি পোস্ট করবেন না।

ছবি ও ভিডিও পোস্ট করার সময় আকর্ষণীয় ক্যাপশন লিখে দিন। আর আপনার ছবিটি যে তুলে দিবে তাকে ক্রেডিট দিতে ভুলবেন না। (ফেসবুক ফেমাস স্ট্যাটাস)

০৭. দিনের ঠিক যে সময়টায় আপনার ফেসবুক বন্ধুরা বেশি অনলাইনে থাকে চেষ্টা করুন ঠিক ঐ সময় পোস্ট করতে।
০৮. আপনার পোস্টে যেসকল কমেন্ট করা হবে সেগুলোতে Reply দিন। তবে সব কমেন্ট এর জবাব একবারে দিবেন না।

প্রতিটি কমেন্টের জবাব কয়েক ঘন্টা পর পর দিন। ফেসবুকে বেশি লাইক পাওয়ার খুবই কার্যকরী উপায় এটি।

০৯. আপনার করা পোস্টগুলো অবশ্যই Public করে রাখবেন যাতে যারা আপনার বন্ধু তালিকায় নেই তারাও রিয়াক্ট, কমেন্ট ও শেয়ার করতে পারে।

১০. বেশি বেশি বন্ধুদের সাথে ছবি তুলুন। এবং তা পোস্ট করার সময় যাদের সাথে ছবি তুলেছেন তাদের ট্যাগ করে দেন। (ফেসবুক আইডি জনপ্রিয় করার উপায়)
১১. আপনি যদি আপনার ফেসবুকের বন্ধুদের পোস্টে রিয়াক্ট ও ইতিবাচক মন্তব্য করেন তাহলে আপনার কোনো ক্ষতি হবে।

এতে আরো আপনার বন্ধুরাও আপনার পোস্টে রিয়াক্ট, কমেন্ট করতে উৎসাহিত হবে।

তবে যেখানে সেখানে HaHa রিয়াক্ট দেওয়া এবং নেতিবাচক পোস্টে রিয়াক্ট, কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন। পোস্টের ধরন বুঝে বেশি বেশি Love, Wow ও Care রিয়াক্ট দিন।

১২. ফেসবুকে প্রফাইলে পোস্ট শেয়ার করতে সতর্কতা অবলম্বন করুন। হুটহাট করে কোনো নেতিবাচক পোস্ট শেয়ার করতে যাবেন না।

১৩. ফেসবুকে আপনার বন্ধু সংখ্যা বাড়ান। আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টে যত বেশি বন্ধু থাকবে ফেসবুক আপনার প্রফাইলটি ততো বেশি ব্যবহারকারীদের মাঝে সাজেসটেড হিসেবে দেখাবে।

যেমনটি আপনি ফেসবুক ব্যবহার করার সময় মাঝে মাঝেই “Suggested People” এবং “People You May Know” লেখার নিচে অনেকের আইডি দেখতে পান।

১৪. ফেসবুকে জনপ্রিয় হবার উপায় হলো ফ্রেন্ড বাছাই করতে একটু কৌশলী হতে হবে। ফেসবুকে যাকে তাকে বন্ধু বানাবেন না।

আপনি বেছে বেছে তাদেরকেই ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠাবেন যারা ফেসবুকে জনপ্রিয়।

১৫. আপনার ফ্রেন্ড লিষ্টে মেয়ে বন্ধুর সংখ্যা বাড়ান। এরফলে আপনি আপনার অন্যান্য ফেসবুক বন্ধুদের নজরে আসবেন খুব সহজেই। (ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায়)

১৬. আপনাকে যারা ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠাবে আপনি তাদের রিকুয়েষ্ট বেশি সময় ঝুলিয়ে না রেখে সম্ভব হলে Confirm অথবা Cancel করে দিন।

আপনার প্রফাইলের ফলোয়ার অপশন অন থাকলে যাদের ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট Cancel করে দিবেন তারাও আপনার ফলোয়ার হয়ে যাবে।

তাই ফলো অপশন Public করে রাখুন। আপনি যাদেরকে ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠাবেন তারা যদি এক্সেপ্ট না করে তাহলে কিছু দিন অপেক্ষা করে সেই রিকুয়েষ্টগুলো বাতিল করে দিবেন।

১৭. ফেসবুকে আপনাকে যেন সবাই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারে, সেটিংসে গিয়ে সেটি নিশ্চিত করুন।
Settings > Profile Privacy > Who Can Send Your Friend Requests? > Everyone (বাছাই করে দিন)

১৮. প্রয়োজন ছাড়া ফেসবুক প্রফাইল লক করে রাখবেন না। ফেসবুক ফেমাস আইডিগুলো Public অবস্থায় থাকে।

১৯. ফেসবুকের মাধ্যমে সামাজিক কর্তব্য পালন করুন। যেমন রক্তদান করা, অসহায় ও দুঃস্থদের পাশে দাঁড়ানো, বিভিন্ন জনকল্যাণমুখী প্রচারণা চালানো ইত্যাদি।

২০. বিভিন্ন ফেসবুকে গ্রুপে নিজেকে সক্রিয় রাখুন। এবং নিয়মিত পোস্ট করুন। আর অন্যদের করা পোস্টেও রিয়াক্ট ও ইতিবাচক মন্তব্য করুন।

বিশেষ করে আপনার এলাকা ভিত্তিক যেসব ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে সেগুলোতে যুক্ত হয়ে আপনার এলাকার বিভিন্ন প্রাকৃতিক ছবি, সংবাদ ও বিনোদনমূলক পোস্ট নিয়মিত শেয়ার করতে পারেন।

(ফেসবুক আইডি ফেমাস করার উপায়)

২১. আপনার যদি কোনো বিষয়ে প্রতিভা/দক্ষতা থেকে থাকে তাহলে ফেসবুক ঐ বিষয়ের উপর বিভিন্ন পেজ ও গ্রুপ খোঁজে সেগুলোতে যুক্ত হোন এবং নিয়মিত একটিভ থাকুন।

অন্যদের কাছ থেকে শিখুন এবং নিজে যা জানুন তা অন্যদের শিখান।
২২. ফেসবুকে অটো রিয়াক্ট, অটো কমেন্ট, অটো ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট এবং অটো ফলোয়ার নেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার সহজ উপায় হিসাবে অনেকেই এসব ভুল পথে পা বাড়িয়ে নিজের ফেসবুক আইডি ডিজেবল করে ফেলে।

তাই নিজের ফেসবুক আইডি রক্ষা করতে চাইলে এসব চিন্তা ভুলেও মাথায় আনবেন না।

২৩. বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ অথবা নিজের নামে ফেসবুক পেজ তৈরি করেও খুব সহজে জনপ্রিয় হতে পারেন।

আপনি চাইলে বিভিন্ন জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপের এডমিন/মডারেটরের দায়িত্ব পালন করে খুব সহজেই অন্যদের নজরে আসতে পারেন।

২৪. মাঝে মাঝে মেসেজের মাধ্যমে আপনার ফেসবুক বন্ধুদের খোজ খবর নিন। তবে কাউকে বিরক্ত করতে যাবেন না।

আর অন্যদের করা মেসেজের জবাব যথাসময়ে দেওয়ার চেষ্টা করুন। (ফেসবুকে কীভাবে জনপ্রিয় হওয়া যায়)

উপরোক্ত ফেসবুকে ফেমাস হবার উপায়গুলো সঠিকভাবে মানলে আশা রাখি ধীরে ধীরে আপনিও ফেসবুক সেলেব্রিটি হতে পারবেন।

ফেসবুকে জনপ্রিয় হওয়ার উপায়গুলো কেমন লাগলো তা নিচের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ।

Mohammad Robin

আমি মুহাম্মদ রবিন, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

এ সম্পর্কিত আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!