ইউটিউবফেসবুক

কপিরাইট ফ্রি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ডাউনলোড করার ৮ টি ওয়েবসাইট।

প্রিয় পাঠক, আপনি যদি একজন ইউটিউবার বা ফেসবুক কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হয়ে থাকেন কিংবা আপনি যদি কোনো ধরনের ভিডিও তৈরি করে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার চিন্তা ভাবনা করে থাকেন তাহলে আপনার অবশ্যই কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের প্রয়োজন পরবে।

আপনার তৈরি ভিডিওতে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করতেও হতে হবে সতর্ক। কারণ আপনার ভিডিওতে ব্যবহৃত মিউজিক যদি কপিরাইট ফ্রি না হয় তাহলে কিন্তু আপনার পেইজ/চ্যানেলে কপিরাইট ক্লেইম, কপিরাইট স্ট্রাইক আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি এতে আপনার পেইজ/চ্যানেলটি বন্ধ পর্যন্ত হয়ে যেতে পারে! যেটা কোনো কন্টেন্ট ক্রিয়েটরের প্রত্যাশা নয়।

এখন কথা হচ্ছে কপিরাইট ফ্রি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ডাউনলোড করা যায় কোথা থেকে?

প্রিয় পাঠক, আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের নো কপিরাইট মিউজিক ফ্রি ডাউনলোড করার ৮ টি ওয়েবসাইটের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব। যেখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় সকল মিউজিক বিনামূল্যে পেয়ে যাবেন। তাহলে আর আপনার জিজ্ঞাসা থাকবে না যে, কপিরাইট ফ্রি ফানি সাউন্ড বা কপিরাইট ফ্রি ফানি মিউজিক কোথায় পাবেন।

কপিরাইট ফ্রি মিউজিক ডাউনলোড করার ৮ টি সেরা ওয়েবসাইট।

নিচে ৮ টি কপিরাইট ফ্রি মিউজিক ডাউনলোড করার ওয়েবসাইটের তালিকা দেওয়া হলো। আপনি আপনার পছন্দের যেকোনো ওয়েবাসাইট থেকে মিউজিক ডাউনলোড করে তা ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন।

01. Wave.video

Wave.video-এর অডিও লাইব্রেরিতে আপনি ৩ লক্ষ+ কপিরাইট মুক্ত মিউজিক ক্লিপ খুঁজে পাবেন। তারা প্রিমিয়াম এবং বিনামূল্যে অডিও প্রদান করে থাকে। Wave.video সম্পর্কে আমি যা পছন্দ করি তা হলো, আপনি আপনার ভিডিওর সাথে প্রতিটি কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের প্রিভিউ দেখতে পারেন। আর ব্রাউজারেই এটিকে কাটতে এবং এডিট করতে পারেন৷

ওয়েবসাইট লিংক

02. HookSounds

হুকসাউন্ডস আপনাকে বিশেষ বিশেষ কপিরাইট ফ্রি মিউজিক ব্যবহারের অনুমতি দিবে, যেগুলো আপনি অন্য কোথাও পাবেন না। কারণ এসব কপিরাইট ফ্রি মিউজিক বিশেষভাবে এই ওয়েবসাইটের জন্যই তৈরি করা হয়ে থাকে।

ইউটিউব থেকে বিজ্ঞাপন বন্ধ করার উপায়।

ব্যবহারকারীরা আর্টিস্ট, ট্যাগ, মুড এবং আরও অনেক কিছু দ্বারা ক্যাটালগ ব্রাউজ করতে পারেন। যার ফলে আপনি আপনার কাংখিত কপিরাইট ফ্রি মিউজিক সহজেই পেয়ে যাবেন।

হুকসাউন্ডস অনেকগুলো সঙ্গীত লাইসেন্স অফার করে যা আপনি বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারবেন। বিনামূল্যে আপনি যেসব লাইসেন্স পাবেন আপনি সেগুলো শুধুমাত্র ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট লিংক

03. Purple Planet

Purple Planet হচ্ছে কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের একটি স্বতন্ত্র লাইব্রেরি। তবে আপনার যদি এখনও ঐতিহ্যগত ঘরানার ফিল্টারগুলির প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি অন্য কোথাও দেখতে পারেন। এই ওয়েবসাইটটিতে কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের খুব বেশি সংগ্রহ নেই।

ওয়েবসাইট লিংক

04. Sound Cloud

আপনি যদি একজন ইউটিউবার হন, তাহলে সাউন্ডক্লাউডে কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের এই রিফ্রেশিং কালেকশনটি আপনার প্রয়োজন মেটাতে পারে। আমি এই ওয়েবসাইটের মিউজিক অনেকবার ব্যবহার করেছি।

এবং এখানে আমার পরামর্শ হলো, আপনি সবসময় আপনার ভ্রমণ বা কথা বলার ভিডিওগুলোর জন্য কিছু দুর্দান্ত কপিরাইট ফ্রি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক খুঁজে পেতে পারেন। তবে আপনার ভিডিওর ডেসক্রিপশনে তাদের ওয়েবসাইটের ক্রেডিট দিতে ভুলবেন না।

ওয়েবসাইট লিংক

05. Bensound

বেনসাউন্ড ওয়েবসাইটে আপনি চমৎকার সব কপিরাইট ফ্রি মিউজিক কালেকশন পেয়ে যাবেন। তারা আপনাকে সিনেমাটিক, অ্যাকোস্টিক/ফোক, ইলেকট্রনিকা ইত্যাদি ধরনের অডিও দিয়ে থাকবে।

তারা তাদের বেনসাউন্ড ওয়েবসাইটটিতে বলেছে, তারা ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের অধীনে কাজ করে। এর মানে হলো আপনি ইউটিউব, ফেসবুক এবং অন্যান্য উদ্দেশ্যে তাদের মিউজিক ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু আপনাকে বেনসাউন্ডকে ক্রেডিট করতে হবে। আপনি যদি বেনসাউন্ডকে ক্রেডিট করতে না চান তবে আপনি লাইসেন্স কিনতে পারেন।

ওয়েবসাইট লিংক

06. Free Stock Music

ফ্রি স্টক মিউজিক ওয়েবসাইটটিতে আপনার ইউটিউব ভিডিও বা প্রজেক্টের (ভ্লগ, পডকাস্ট, সামাজিক নেটওয়ার্ক, ইত্যাদি) জন্য রয়্যালটি-মুক্ত মিউজিক পাবেন, যার বিনিময়ে আপনাকে কেবল তাদের ক্রেডিট দিতে হবে।

ওয়েবসাইট লিংক

07. Youtube Audio Library.

ফেসবুক কিংবা ইউটিউব ভিডিও তৈরির জন্য কপিরাইট ফ্রি মিউজিকের অন্যতম উৎস হলো ইউটিউব অডিও লাইব্রেরি। ইউটিউব অডিও লাইব্রেরি হলো মিউজিকের বড় একটি লাইব্রেরি যা আপনি আপনার ফেসবুক এবং ইউটিউবের ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারেন।

ইউটিউব অডিও লাইব্রেরির মিউজিকগুলো ক্রিয়েটিভ কমন্স দ্বারা আচ্ছাদিত, যার মানে আপনি কপিরাইট সমস্যা ছাড়াই এটি ব্যবহার করতে পারেন। ইউটিউব অডিও লাইব্রেরিতে আপনি আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করার জন্য সব ধরনের মিউজিক পেয়ে যাবেন। এখান থেকে মিউজিক ডাউনলোড করাও অনেক সহজ।

ওয়েবসাইট লিংক

08. Facebook Sound collection.

ফেসবুক সাউন্ড কালেকশন হচ্ছে ক্রিয়েটর স্টুডিওর একটি অংশ। এটি অনেকটাই ইউটিউবের অডিও লাইব্রেরির মতো। ফেসবুক সাউন্ড কালেকশনে কম ফিল্টার ব্যবহারের সুযোগ থাকে এবং আমি যে মিউজিকগুলো পেয়েছি তার মধ্যে কিছু বেশ ভারী (২৫-৫০ এমবি) ছিল।

তবে আপনি ফেসবুক সাউন্ড কালেকশন চেক করে দেখতে পারেন। এখানে আপনি আপনার পছন্দের কপিরাইট ফ্রি মিউজিক খুব সহজেই পেয়ে যেতে পারেন।

ওয়েবসাইট লিংক

প্রিয় পাঠক, আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি কিছুটা হলেও উপকৃত হতে পেরেছেন। এমন আরও প্রয়োজনীয় সব আর্টিকেল পড়তে আমাদের প্রযুক্তি প্রিয় ডট কম ওয়েবসাইটে নিয়মিত চোখ রাখুন।

50% LikesVS
50% Dislikes

Robin Miah

আমি রবিন মিয়া, একজন সৌদি আরব প্রবাসী। আমার বাসা টাংগাইলের কালিহাতীতে। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য নিজে জানার জন্য এবং আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে এই ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছি।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!